যাদের জীবনে অনেক ডিপ্রেশন তাহাদের জন্য!

ডিপ্রেশন বেশ খারাপ জিনিস। একবারে ধরে বসলে বের হয়ে আসা কঠিন। আমার পরিচিত বেশ কয়েকজনকে দেখেছি আমি এটার পাল্লায় পড়ে সব পোটেনশিয়াল নষ্ট করতে। ইন ফ্যাক্ট, তাদের জীবনটাই উল্টা পাল্টা হয়ে গেছে।

ডিপ্রেশন ট্যাকল করার বেশ কিছু উপায় আছে। কাউন্সেলিং তার মধ্যে ভালো একটা উপায়। আমি যেহেতু বেশ দীর্ঘদিনের ডিপ্রেশনের রোগী, আমার মোটামুটি অভিজ্ঞতা আছে এই ব্যাপারে।

যারা ডিপ্রেশনে ভুগছেন তাদের অবশ্যই এটা বুঝতে হবে যে এটা ভালো করার ক্ষমতা একমাত্র তাদেরই আছে। একেবারে না গেলেও যাতে বেশি না বাড়ে সেটার কথা বলছি। আপনার যেটা ভালো লাগে আপনি সেটাই করবেন। এতে আপনার মানসিক স্ট্রেস কমবে। এটা আমার সাইক্রিয়াটিস্ট আমাকে বলেছিল, বেশ কাজে দিছে। যেমন আমি এনালাইসিস করি বেশি ডিপ্রেসড থাকলে কারণ এতে আমার মনোযোগ অন্যদিকে থাকে এবং যেহেতু এটা আমার ন্যাচারাল একটা ট্রেট, এতে ব্রেনে পজিটিভ ফিডব্যাক দেয় নার্ভ। উইন উইন কল আরকি। অনেকে অবশ্য অনেক বাজে কথা বলে তবে সেটা কানে নেয়ার ইচ্ছা কোনকালেই ছিল না। আমার পয়েন্ট সিম্পল- যতদিন তুমি আমার বেতন দিচ্ছো না, আমার কোন উপকার তোমাকে দিয়ে হচ্ছে না, আমার বিল দিচ্ছো না, ততদিন তোমার কথা চোদার বান্দা না অনিরুদ্ধ জাহাঙ্গীর। তা তুমি সিনিয়র হও আর যেই হও না কেন। ❤

ডিপ্রেসড রোগীদের জন্য আরেকটা টিপস – নেগেটিভ মানুষদের থেকে দূরে থাকবেন। যারা আপনার পিছনে কথা বলে তাদের থেকে দূরে থাকেন। ট্রাস্ট মি, এরা আপনার কোন উপকারে এমনেও আসবে না। উল্টা ওরা আপনার পিছনেই কথা বলবে, সেটাও বানায় বানায়। অনেক লোকজন দেখলাম তো ভার্সিটি লাইফ থেকে। আর এই দূরে দূরে থাকাটা নিজের দুর্বলতা ভাবার কোন কারণ নাই। আপনাকেই ঠিক করতে হবে আপনি কি চান। আপনি যদি এসব মানুষদের আপনার আশেপাশেই রাখতে চান, রাখতে পারেন। তাতে উপকার কিছু না হলেও নেগেটিভ ভাইবের কোন অভাব পড়বে না। কিছু না পারলে ফেসবুকে আনফ্রেন্ড করে দেন, নাইলে আনফলো করে দেন। আপনি কয়দিন বাঁচেন তারই ঠিক ঠিকানা নাই, এর মধ্যে এসব নিয়ে প্যারা নিয়ে তো লাভ নাই রে ভাই । ❤

এতকিছু করে ফেলতে পারলে আপনি হয় এরোগ্যান্ট বা অহংকারী ট্যাগ পাবেন আশা করা যায়। আমি পাইছি। এই দুইটা কেন, আমাকে কেউ যদি এখন এসে বলে তুই একটা শুয়োর, তাও আমার গায়ে লাগবে না কারণ আমি এসব গোনায় ধরতেছি না কারণ আমার কাছে আমার মানসিক শান্তি আগে। কে কি বলতেছে এসব চিন্তা করলে আপনি জীবনেও মানসিক শান্তি পাবেন না। ইউ ক্যান টেক মাই ওয়ার্ড ফর দ্যাট!

সবার আগে নিজেকে বাঁচান। আপনি বাঁচলে আরও ১০ জনকে বাঁচাতে পারবেন যদি ইচ্ছা থাকে। নিজের যত্ন নিন। ডিপ্রেশন ইজ অ্যা রিয়েল থ্রেট, টেক ইট সিরিয়াসলি। 🙂

Advertisements